USA

ফ্লোরিডায় শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আরমার গর্জন, প্রার্থনার আহ্বান গভর্নরের


ইউএসএনিউজঅনলাইন.কম ডেস্ক : আটলান্টিকের সবচেয়ে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়গুলোর মধ্যে অন্যতম আরমা রবিবার সকালে ফ্লোরিডার দ্বীপ ফ্লোরিডা কিজ-এ আঘাত হেনেছে। ঘণ্টায় ২১৫ কিলোমিটার গতিতে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানে। এরপর ঘূর্ণিঝড়টি ফ্লোরিডার মূল ভূখণ্ডের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এরই মধ্যে ভারী বর্ষণে মিয়ামিতে বন্যা দেখা দিয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে সৃষ্ট জলোচ্ছ্বাসে সাগরের পানি উঠে আসছে সমতলে। আশঙ্কা করা হচ্ছে জলোচ্ছ্বাস ও ভূমিধসে ব্যাপক প্রাণহানি হতে পারে। এই অবস্থায় ফ্লোরিডার গভর্নর তাদের জন্য প্রার্থনার আহ্বান জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার পুর্বাভাসে ভয়ংকর জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কার কথা জানিয়েছে। ৫৭ বছরের যুক্তরাষ্ট্রের আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড়গুলোর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী হচ্ছে আরমা। এরই মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি ৪ নম্বর ক্যাটাগরিতে পৌঁছে গেছে। উপকূলের বিভিন্ন স্থানে প্রবল বাতাসে ১৫ ফুট পর্যন্ত পানি উঠে আসছে। ঘূর্ণিঝড়ে ফ্লোরিডা কিজ দ্বীপে ভূমিধস হয়েছে। ফ্লোরিডার সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎ কোম্পানির মতে রাজ্যটির প্রায় ১৩ লাখ ৫০ হাজার মানুষ বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, আরমার আঘাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় জনবহুল এই রাজ্যটি দেশটির অর্থনীতিতে বিরাট ভূমিকা রাখে। ফ্লোরিডা যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম পর্যটন এলাকা।

হারিকেন সেন্টার জানিয়েছে, সকাল ৯টায় ফ্লোরিডা কিজ-এ আঘাতে হানে আরমা। এরপর তা ফ্লোরিডার টাম্পা ও সেন্ট পিটার্সবুগের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। পূর্বাভাসে আশঙ্কা করা হয়েছে, আরমার আঘাতে ফ্লোরিডার বিশাল এলাকাজুড়ে টর্নেডো বয়ে যেতে পারে। জলোচ্ছ্বাসের কারণে সমুদ্রের পানি স্বাভাবিক উচ্চতার চেয়ে তিন ফুট বেশি রয়েছে।

ফ্লোরিডার দিকে ধেয়ে আসার আগে আরমা ক্যারাবিয়ান অঞ্চলে বেশ কয়েকটি দ্বীপে আঘাত হানে। এ পর্যন্ত আক্রান্ত এলায় প্রায় ২৫ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

ফ্লোরিডাতে ১ ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে। জরুরি সেবার কর্মীরা জানিয়েছেন, তীব্র বাতাসের মধ্যে গাড়ি চালানোর সময় ট্রাক উল্টে গেলে ওই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

কর্মকর্তারা বাতাসের চেয়ে জলোচ্ছ্বাসে পানি বৃদ্ধি নিয়ে বেশি উদ্বেগে রয়েছেন। ফেডারেল এমারজেন্সি ম্যানেজমেন্ট অ্যাজেন্সির প্রশাসক ব্রক লং এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, জলোচ্ছ্বাসের ফলে অনেক মানুষ প্রাণ হারাতে পারেন এবং ক্ষয়ক্ষতি হবে।

ফ্লোরিডার মোট জনসংখ্যা ৩০ শতাংশ প্রায় ৬৩ লাখ মানুষকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। তবে অনেকেই আশ্রয়কেন্দ্রে যাননি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ৫টি রাজ্যের গভর্নরদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। ফ্লোরিডার পাশাপাশি আলাবামা, জর্জিয়া, সাউথ ক্যারোলিনা ও টেনেসির গভর্নরদের সঙ্গে ট্রাম্প কথা বলেছেন বলে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। সূত্র: রয়টার্স, বিবিসি, সিএনএন।